অষ্টম শ্রেণীর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ সমাধান - ৬ষ্ঠ সপ্তাহ

অষ্টম শ্রেণীর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ - ৬ষ্ঠ সপ্তাহ



 অষ্টম শ্রেণীর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ সমাধান - ৬ষ্ঠ সপ্তাহ

পরিবারের সদস্যদের সুষম খাবার পরিবেশনের জন্য মেনু পরিকল্পনা করা উচিত । মেনু পরিকল্পনার মাধ্যমে পুষ্টি সম্মিলিত আকর্ষণীয় খাবার পরিবেশন করা যায় । খাদ্য পরিকল্পনায় পুষ্টির বিষয়টিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয় । কারণ পুষ্টির অভাবে শারীরিক বর্ধন এবং মেধা বিকাশ ব্যাহত হয়। খাদ্যখাতে খরচের বিষয় বিবেচনা করে মেনু পরিকল্পনা করতে হয়। খাবার যাতে একঘেয়ে না হয়ে যায় সেজন্য বিভিন্ন ধরণের খাদ্যের সমাহার ঘটাতে হবে। আমার বয়স হচ্ছে তের বছর। আমি একজন কিশাের/কিশােরী । নিচে আমার ১ দিনের খাদ্য তালিকা পরিমাণসহ উপস্থাপন করা হলাে :

বিভিন্ন শ্রেণির খাদ্যসকালদুপুরবিকালরাত
১. শস্য ও শস্য জাতীয় খাদ্য১ কাপ ভাত /২টি রুটি২কাপ ভাত১ কাপ মুড়ি / চিড়া।১ কাপ ভাত /২টি রুটি
২. প্রােটিন জাতীয় খাদ্য১ টি ডিম / ১ কাপ ডাল১ কাপ ডাল বিকাল – ১/৩ কাপ বাদাম১ কাপ ডাল
৩, শাকসবজি১ কাপ সালাদ / ১ কাপ সবজি।১ কাপ শাক / ১ কাপ সবজি১ টা আলু১ কাপ শাক / ১ কাপ সবজি
৪. ফল১ টি কলা১ টি পেয়ারা / ১ টি পেঁপে
৫. দুধ ও দুধ জাতীয় খাদ্য: ১ কাপ দুধ১ কাপ দুধ/১ কাপ দধি
৬. তেল, ঘি :২চামচ তেল২চামচ তেল১ চামচ ঘি২চামচ তেল
৭. মিষ্টি জাতীয় খাবার১ টি মিষ্টি /১ গ্লাস শরবত


আমাদের দৈনিক কাজকর্ম, চিন্তা ভাবনা ও শারীরিক পরিশ্রমের জন্য দেহের ক্ষয় হয়, খাদ্য সেই ক্ষয় পূরণ করে। তাই দেহের পুষ্টির জন্য খাদ্য একান্ত প্রয়ােজন। পুষ্টির অভাবে শারীরিক বর্ধন এবং মেধা বিকাশ ব্যাহত হয়। খাদ্যদ্রব্য মানুষের জীবনের ভিত্তি ও প্রধান অবলম্বন । ভালাে খাওয়া দাওয়া ভালাে স্বাস্থ্য, কর্মসামর্থ্য ও দীর্ঘ পরমায়ু লাভের উপায়। কিন্তু ভালাে ভালাে খাদ্য খেলেও দেখা যায় শরীরে অনেক ক্ষেত্রে আশানুরূপ ফল পাওয়া যায় না । খাদ্য সুষম (Well. Balanced) হওয়া প্রয়ােজন । শারীরিক ক্ষমতা ও দক্ষতা বজায় রাখার জন্য প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় ছয়টি মৌলিক পুষ্টি উপাদানের উপস্থিতি।
তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় প্রয়ােজনীয় পুষ্টি উপাদান পেতে হলে মৌলিক খাদ্য গােষ্টির প্রতিটি গ্রুপ থেকে বিভিন্ন ধরনের খাদ্য প্রতিদিনই নির্বাচন করতে হবে। প্রতিদিনই উদ্ভিজ্জ প্রাণীজ উভয় উৎস থেকেই প্রােটিন গ্রহণ করতে হবে। দিনে অন্তত একবার প্রাণীজ প্রােটিন গ্রহণ করতে হবে। খাদ্যের সঠিক রং ও আকৃতি, ভালাে রান্না এবং বিভিন্ন ধরনের খাবার মুখে রুচি আনতে এবং খাদ্য গ্রহণে আকৃষ্ট করে। তাছাড়াও খাবার যাতে একঘেয়ে না হয়ে যায় সেজন্যও বিভিন্ন ধরণের খাদ্যের সমাহার আর এ কারণেই আমাদের বিভিন্ন শ্রেণীর খাদ্য গ্রহণ করতে হবে ।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন

সার্চ করুন

close