অষ্টম শ্রেণীর বাংলা এ্যাসাইনমেন্ট ৫ম সপ্তাহ উত্তর ২০২১

অষ্টম শ্রেণীর বাংলা এ্যাসাইনমেন্ট ৫ম সপ্তাহ ২০২১


“বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ” শিরোনামে ৫০০ শব্দের মধ্য একটি প্রবন্ধ রচান।

অষ্টম শ্রেণীর বাংলা এ্যাসাইনমেন্ট ৫ম সপ্তাহ উত্তর ২০২১

বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

ভূমিকাঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যাকে আমরা জাতির পিতা নামে আখ্যায়িত করি। তিনি আমাদের বাঙ্গালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। কারন তার জন্য আমার পেয়েছি আমাদের স্বাধীনতা পেয়েছি বাংলাদেশ নামক একটি রাষ্ট্র। আমরা পৃথিবীর বুকে গর্ব করে বলতে পারি আমরা একটি স্বাধীন জাতি। আমরা মনে করি যদি মুজিবের জন্ম না হতো তাহলে আজো হয়তো আমরা পরাধীনতার শিকলে আবদ্ধ থাকতাম!

বঙ্গবন্ধুর জীবন বৃত্তান্ত: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোপালগঞ্জ জেলার পাটগাতি ইউনিয়নের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম শেখ লুৎফর রহমান। তারা পিতা ছিলেন গোপালগঞ্জ দায়রা আদালতের হিসাব রক্ষক। তার মাতার নাম ছিল সায়েরা খাতুন। তারা ছিলেন মোট চার বোন এবং দুই ভাই। শেখ মুজিব ছিল সন্তানদের মধ্যে তৃতীয়। তিনি গিমাডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেন ১৯২৭ সালে। এবং পরবর্তীতে গোপালগঞ্জ পাবলিক স্কুলে ভর্তি হন। এবং ১৯২৯ সাল থেকে ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত এখানে পড়ালেখা করেন তিনি। চোখের জটিল সমস্যার কারনে তিনি ১৯৩৪ সাল থেকে পরবর্তী চার বছর পড়াশোনা করতে পারে নাই।কারন এ সময়ে তার চোখের সার্জারী করাতে হয়। এবং সুস্থতা লাভ করতে সময় লাগে।পরবর্তীতে তিনি গোপালগঞ্জের মিশনারী স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করেন। তার নেতৃত্ব প্রদানের সূত্রপাত ঘটে এই গোপালগঞ্জ মিশনারী স্কুলের থেকেই।


ভারত পাকিস্তান বিভাজনের পরে তিনি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাবে ভর্তি হন। এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়ন কালেই তিনি গঠন করেন পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্র লীগ। এটি প্রতিষ্ঠা হয় ১৯৪৮ সালের ৪ঠা জানুয়ারি। এর মাধ্যমেই তিনি একজন অসমান্য ছাত্র নেতায় পরিনত হয়। এবং যার পরবর্তী ফল স্বরূপ স্বাধীনতার ডাক!

বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশঃ বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শব্দ দুইটি একবারে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কারন বঙ্গবন্ধু না থাকলে আজকের বাংলাদেশ হয়তো আমরা পেতাম না। বাংলাদেশ শব্দের মুলে হলো শেখ মুজিব। কারন তৎকালীন সময় আমাদের দেশের নাম ছিল পূর্ব পাকিস্তান। এবং আমাদের এই পূর্ব পাকিস্তানের শাসন ব্যবস্থা ছিল পশ্চিম পাকিস্তানের হাতে।

তবে আমরা ছিলাম পশ্চিম পাকিস্তানের তুলনায় সম্পদ ও জনবলে বেশি। তারপরও আমাদের ছিল না কোন স্বাধীনতা। পশ্চিম পাকিস্তানের রাষ্ট্র ভাষা ছিল উর্দু ৫২ তে পশ্চিম পাকিস্তানিরা আমাদের রাষ্ট্র ভাষা হিসেবে উর্দুকে চাপিয়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু ভাষা আন্দোলনের কারনে তারা ব্যার্থ হয়। এবং বাংলা কে রাষ্ট্র ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দিতে বাধ্য হয়। আর এই রকমই বিভিন্ন পদে পদে তারা আমাদের উপর জুলুম শুরু করে। পূর্ব পাকিস্তানের জনগনের অধিকার লুন্ঠন এবং এদেশের সম্পদ পশ্চিম পাকিস্তানে পাচার করা ছিল পশ্চিম পাকিস্তানের কাজ। আর এই শোষণ থেকে বাঙ্গালী জাতিকে মুক্ত করতেই জন্ম হয় শেখ মুজিবের।

বঙ্গবন্ধুর ভাষণঃ তিনি মাওলানা আব্দুল হামিদ ভাসানীর প্রতিষ্ঠিত আওয়ামী লিগের সভাপতি হন। এবং সে সময় পূর্ব পাকিস্তান এবং পশ্চিম পাকিস্তানের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় এবং আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে জয়লাভ করে। কিন্তু ইয়াহিয়া খান সংসদের ডাক দিতে দেরি করেন। যার ফলে পূর্ব পাকিস্তানিদের অর্থাৎ বাঙ্গালীদের বুঝতে আর অসুবিধা হয় না যে, তারা ভোটে জয়লাভ করেও কখনোই ক্ষমতা লাভ করতে পারবেনা। এরই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রেসকোর্স ময়দানে তার সেই ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চের ভাষন দেয়। এবং স্বাধীনতা যুদ্ধের ডাক দেয়।

এই ভাষনের ফলে বাঙ্গালীর মনে স্বাধীনতার চেতনার জাগরণ হয়। এবং বাঙ্গালী জাতী ও স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহনের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। এর ফালে পশ্চিম পাকিস্তানের শাসক গোষ্ঠী আওয়ামী লীগকে অবৈধ ঘোষণা করে এবং মুজিব সহ আরো নেতা কর্মীদের গ্রেফতার করে।কিন্তু জনসাধারণের চাপে তারা বেশিদিন মুজিবকে জেলে আটকে রাখতে পারে নাই।

বরং পরবর্তীতে পরিস্থিতি আরো জটিল হলে পশ্চিম পাকিস্তানের শাসক গোষ্ঠী মেতে ওঠে ভয়াবহ হত্যা কান্ডে। এবং বিপুল পরিমানে মানুষকে তারা খুন করে। তাদের এই হত্যাকান্ড ছিল মানবতা বিবর্জিত এবং ইতিহাসের সবচেয়ে ঘৃন্য হত্যা কান্ড। তারা ৩০ লাখেরও বেশি মানুষকে হত্যা করে। এই হত্যা কান্ডে তাদের সহযোগিতা করে আমাদের দেশেরই কিছু কুলাঙ্গার যাদেরকে রাজাকার নামে আখ্যায়িত করা হয়। এই দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পরে তারা পরাজয় স্বীকার করে। এবং আমরা পাই বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র।

উপসংহারঃ বাংলাদেশ গঠন এবং বাঙ্গালির স্বাধীনতা অর্জনে শেখ মুজিবের ভূমিকা অনস্বীকার্য।তিনি বাঙ্গালি জাতির স্বাধীনতার মহা নায়ক। আর এ কারনেই তাকে জাতির পিতা নামে ডাকা হয়। মুজিবের জন্ম না হলে হয়ত আমাদের স্বাধীনতা অর্জনই আজো হতো না!

3 মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

সার্চ করুন

close